বর্ণবাদী আক্রমণের শিকার স্পিনার ইমরান তাহির

স্পোর্টস ডেস্ক: বর্ণবাদের কালো ছায়া থেকে এখনও মুক্তি পায়নি দক্ষিণ আফ্রিকা। যার প্রমাণ এখনও মেলে সেখানকার ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত প্রোটিয়া লেগ স্পিনার ইমরান তাহিরের পক্ষ থেকে এমনই অভিযোগ উঠেছে ভারতের বিপক্ষে চতুর্থ ওয়ানডে খেলার পর। অবশ্য বিষয়টি এখনও তদন্তাধীন অবস্থায় রয়েছে বলে জানিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড।

ঘটনার শিকার ইমরান তাহির জানিয়েছেন, জোহানেসবার্গে অপরিচিত এক দর্শক তাকে মৌখিকভাবে বর্ণবাদী মন্তব্যে আক্রমণ করেছিলেন। বিষয়টি নিরাপত্তা রক্ষীদের তাৎক্ষণিকভাবে জানালে দুজন এসে অভিযুক্তকে স্টেডিয়াম থেকে বের করে দেয়। অবশ্য এই সময়ে শারীরিক সংস্পর্শের কোনও ঘটনা ঘটেনি।

আইসিসির বর্ণবাদ বিরোধী আইনও এমন আচরণকে সমর্থন করে না। বিধি মালায় স্পষ্ট বলা আছে, যারা এমন বর্ণবাদী আচরণ করবে তাদের স্টেডিয়াম থেকে বের করে দেওয়া হবে। পরবর্তীতে স্টেডিয়ামে নিষিদ্ধও হতে পারেন ওই অভিযুক্ত। এমনকি আইনি প্রক্রিয়াতেও শাস্তি প্রয়োগ করা হতে পারে।

তাহির অবশ্য এমন আচরণের শিকার এবারই প্রথমবার হলেন না। ২০১৫ বিশ্বকাপেও বর্ণবাদের শিকার হয়েছিলেন। মানুকা ওভালে এমন আক্রমণের শিকার হয়েছিলেন। এর আগে ২০১৪ সালে এক সফরে একই ঘটনার মুখোমুখি হন। অথচ এক সময় এই বর্ণবাদের কারণেই ২২ বছর ক্রিকেটে নিষিদ্ধ ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৯৭০ সালে আরোপ করা এই নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেওয়া হয় ১৯৯২ সালে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *